১১:৫৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সেহরির জন্য যে খাবারগুলো ক্ষতিকর

প্যাকেটজাত খাবার

প্রক্রিয়াজাত, প্যাকেটজাত অথবা প্রসেসড ফুড খাবার সেহরিতে রাখবেন না। এসব খাবারে অস্বাস্থ্যকর চর্বি থাকে, যা হজম ব্যবস্থাকে ব্যাহত করতে পারে। যে কারণে দেখা দিতে পারে হজম সংক্রান্ত নানা সমস্যা। সেইসঙ্গে এটি রোজার সময় আপনাকে আরও ক্লান্ত ও দুর্বল করে দিতে পারে।

ক্যাফেইন

যারা কফি পান করতে পছন্দ করেন তাদের জন্য কফি থেকে দূরে থাকা মুশকিল, এমনকী এই রমজানের সময়েও। এক্ষেত্রে এককাপ কফি পান করা যেতে পারে, তবে তা অবশ্যই সেহরির সময়ে নয়। কারণ এসময় চা কিংবা কফির মতো ক্যাফেইনযুক্ত পানীয় পান করলে তা ডিহাইড্রেশন এবং প্রস্রাবের বৃদ্ধির কারণ হতে পারে।

যদিও সেহরিতে মিষ্টি বা ডেজার্ট খাওয়ার জন্য ইচ্ছা হতে পারে, কিন্তু এ ধরনের খাবারে অতিরিক্ত চিনি যোগ করা থাকে এবং সেইসঙ্গে থাকে কম পরিমাণ পুষ্টি। এর ফলে লোভে পড়ে খেলেও তা কিন্তু আপনাকে শক্তি দেবে না। বরং দুর্বল করে দেবে। তাই এদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

সেহরিতে যেসব খাবার খেতে পারেন

সেহরির জন্য সুষম খাবার বেছে নিন। যাতে রয়েছে জটিল কার্বোহাইড্রেট, চর্বিহীন প্রোটিন, স্বাস্থ্যকর চর্বি, ফাইবার-সমৃদ্ধ খাবার এবং রোজার পুরো সময় জুড়ে হাইড্রেটেড থাকার জন্য প্রচুর পানি। পুষ্টিকর ও তৃপ্তিদায়ক সেহরির জন্য লাল চালের ভাত, গোটা শস্যের রুটি, ডাল, ডিম, দই, ফলমূল, শাকসবজি এবং বাদামের মতো খাবার খেতে পারেন।

অতিরিক্ত খাবেন না

সারাদিন বেশি শক্তি পাওয়া যাবে মনে করে সেহরিতে অতিরিক্ত খেয়ে ফেলবেন না। এতে তো সুফল পাবেনই না, উল্টো সারাদিন অস্বস্তি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেখা দিতে পারে হজমের সমস্যা বা পেট ফাঁপা। তাই অতিরিক্ত খাবার না খেয়ে পরিমিত এবং সুষম খাবার খাওয়ার দিকে মনোযোগ দিন।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

চুয়াডাঙ্গাসহ সারাদেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

সেহরির জন্য যে খাবারগুলো ক্ষতিকর

প্রকাশের সময় : ০৫:১৫:১৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৭ মার্চ ২০২৪

প্যাকেটজাত খাবার

প্রক্রিয়াজাত, প্যাকেটজাত অথবা প্রসেসড ফুড খাবার সেহরিতে রাখবেন না। এসব খাবারে অস্বাস্থ্যকর চর্বি থাকে, যা হজম ব্যবস্থাকে ব্যাহত করতে পারে। যে কারণে দেখা দিতে পারে হজম সংক্রান্ত নানা সমস্যা। সেইসঙ্গে এটি রোজার সময় আপনাকে আরও ক্লান্ত ও দুর্বল করে দিতে পারে।

ক্যাফেইন

যারা কফি পান করতে পছন্দ করেন তাদের জন্য কফি থেকে দূরে থাকা মুশকিল, এমনকী এই রমজানের সময়েও। এক্ষেত্রে এককাপ কফি পান করা যেতে পারে, তবে তা অবশ্যই সেহরির সময়ে নয়। কারণ এসময় চা কিংবা কফির মতো ক্যাফেইনযুক্ত পানীয় পান করলে তা ডিহাইড্রেশন এবং প্রস্রাবের বৃদ্ধির কারণ হতে পারে।

যদিও সেহরিতে মিষ্টি বা ডেজার্ট খাওয়ার জন্য ইচ্ছা হতে পারে, কিন্তু এ ধরনের খাবারে অতিরিক্ত চিনি যোগ করা থাকে এবং সেইসঙ্গে থাকে কম পরিমাণ পুষ্টি। এর ফলে লোভে পড়ে খেলেও তা কিন্তু আপনাকে শক্তি দেবে না। বরং দুর্বল করে দেবে। তাই এদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

সেহরিতে যেসব খাবার খেতে পারেন

সেহরির জন্য সুষম খাবার বেছে নিন। যাতে রয়েছে জটিল কার্বোহাইড্রেট, চর্বিহীন প্রোটিন, স্বাস্থ্যকর চর্বি, ফাইবার-সমৃদ্ধ খাবার এবং রোজার পুরো সময় জুড়ে হাইড্রেটেড থাকার জন্য প্রচুর পানি। পুষ্টিকর ও তৃপ্তিদায়ক সেহরির জন্য লাল চালের ভাত, গোটা শস্যের রুটি, ডাল, ডিম, দই, ফলমূল, শাকসবজি এবং বাদামের মতো খাবার খেতে পারেন।

অতিরিক্ত খাবেন না

সারাদিন বেশি শক্তি পাওয়া যাবে মনে করে সেহরিতে অতিরিক্ত খেয়ে ফেলবেন না। এতে তো সুফল পাবেনই না, উল্টো সারাদিন অস্বস্তি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেখা দিতে পারে হজমের সমস্যা বা পেট ফাঁপা। তাই অতিরিক্ত খাবার না খেয়ে পরিমিত এবং সুষম খাবার খাওয়ার দিকে মনোযোগ দিন।