১০:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গার ‘বড় হুজুর’ খ্যাত মাওলানা আবুল কাসেম দেওবন্দীর ‘কর্মদীপ্ত জীবন’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

শনিবার (২২ জুন) বেলা ১১ টায় চুয়াডাঙ্গা শহরে হোটেল সাহিদ প্যালেসে স্থানীয় ও দেশবরেণ্য আলেম উলামা, লেখক ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে এই মোড়ক উন্মোচন ও স্মরণ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশগ্রহণ করেন বিপুল সংখ্যক তরুণ আলেম, ছাত্ররা। সভাপতিত্ব করেন, ফজলুল উলুম বহুমুখী মাদরাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস, মাওলানা এনামুল হক।

আয়োজিত “মোড়ক উন্মোচন” ও স্মরণ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন লেখক, সাহিত্যিক, গবেষক ও মুহাদ্দিস, মাওলানা যাইনুল আবিদীন।

প্রথমেই ‘চুয়াডাঙ্গার বড় হুজুর’ খ্যাত মাওলানা আবুল কাসেম দেওবন্দী হুসাইনী (রহ.)-এর “কর্মদীপ্ত জীবন” বইয়ের লেখককে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তরুণ আলেম মাওলানা এনায়েতুল্লাহ ফাহাদ বর্তমান সময়ের চাহিদা অনুযায়ী একেবারে ‘তরতাজা ভাষায়’ বাংলাদেশের একজন মনিষীর বর্ণাঢ্য জীবনীকে তুলে ধরেছেন। এর মাধ্যমে শুধুমাত্র একজন ব্যক্তিকেই নয়, বরং চুয়াডাঙ্গা’র নামকে ইতিহাসের পাতায় স্থায়ী করেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, আমি আশা করব এ গ্রন্থটি পাঠকের পাশাপাশি দেশের প্রতিটা উল্লেখযোগ্য উন্মুক্ত লাইব্রেরি ও ইসলামী ফাউন্ডেশন কর্তৃক অন্তত একটি কপি হলেও সংরক্ষিত হবে, যাতে করি এই মনীষীকে সহজে জানা যায়।

বইয়ের লেখক মাওলানা এনায়েতুল্লাহ ফাহাদ বলেন, এই বইটি প্রকাশে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছেন আমার পিতা মাওলানা এনামুল হক। আরও পরামর্শ দিয়েছেন চুয়াডাঙ্গার সর্বস্তরের আলেমসমাজ। তথ্য সংগ্রহ করে এগিয়ে নিয়েছেন শফিউল্লাহ আল মামুন ও মুহিত হাসান রিদওয়ান। এই অনুষ্ঠান শুধু মোড়ক উন্মোচনেই থেমে থাকবে না! আগামীতে তারুণ্যের সম্ভাবনাময়ী কাজ হবে, ইনশাআল্লাহ।

মুফতি রুহুল আমিন ও মুফতি আজিজুল্লাহ’র সঞ্চালনায় আয়োজিত “মোড়ক উন্মোচন” ও স্মরণ শীর্ষক সেমিনারে শুরুতে কুরআন তেলাওয়াত করেছেন আন্তর্জাতিক ক্বারী মাহবুবুর রহমান, ইসলামী নাশিদ পরিবেশন করেন মুফতি শফিউল্লাহ আল মামুন। পরবর্তীতে স্থানীয় আলেমরা ক্রমান্বয়ে বক্তব্য রাখেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মাওলানা আব্দুর রাযযাক নদভী, মাওলানা ইয়াহইয়া ইউসুফ নদভী, মাওলানা আবু তাসনীম ইমদাদুল্লাহ, ইয়ামিন আলীসহ আরও অনেকেই।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, মাওলানা রুহুল আমিন, মুফতি আবু তাহের, মুফতি আব্দুর রাজ্জাক, মুফতি জুনাইদ আল হাবিবী, মাওলানা আব্দুস সামাদ, মাওলানা জহুরুল ইসলাম আজিজী, মাওলানা ইমদাদুল হক, মাওলানা হাসান মুরাদ ও মাওলানা জাহিদ হাসান প্রমুখ।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

চুয়াডাঙ্গাসহ সারাদেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

চুয়াডাঙ্গার ‘বড় হুজুর’ খ্যাত মাওলানা আবুল কাসেম দেওবন্দীর ‘কর্মদীপ্ত জীবন’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

প্রকাশের সময় : ০৫:৩৫:১৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

শনিবার (২২ জুন) বেলা ১১ টায় চুয়াডাঙ্গা শহরে হোটেল সাহিদ প্যালেসে স্থানীয় ও দেশবরেণ্য আলেম উলামা, লেখক ও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে এই মোড়ক উন্মোচন ও স্মরণ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশগ্রহণ করেন বিপুল সংখ্যক তরুণ আলেম, ছাত্ররা। সভাপতিত্ব করেন, ফজলুল উলুম বহুমুখী মাদরাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস, মাওলানা এনামুল হক।

আয়োজিত “মোড়ক উন্মোচন” ও স্মরণ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন লেখক, সাহিত্যিক, গবেষক ও মুহাদ্দিস, মাওলানা যাইনুল আবিদীন।

প্রথমেই ‘চুয়াডাঙ্গার বড় হুজুর’ খ্যাত মাওলানা আবুল কাসেম দেওবন্দী হুসাইনী (রহ.)-এর “কর্মদীপ্ত জীবন” বইয়ের লেখককে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তরুণ আলেম মাওলানা এনায়েতুল্লাহ ফাহাদ বর্তমান সময়ের চাহিদা অনুযায়ী একেবারে ‘তরতাজা ভাষায়’ বাংলাদেশের একজন মনিষীর বর্ণাঢ্য জীবনীকে তুলে ধরেছেন। এর মাধ্যমে শুধুমাত্র একজন ব্যক্তিকেই নয়, বরং চুয়াডাঙ্গা’র নামকে ইতিহাসের পাতায় স্থায়ী করেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, আমি আশা করব এ গ্রন্থটি পাঠকের পাশাপাশি দেশের প্রতিটা উল্লেখযোগ্য উন্মুক্ত লাইব্রেরি ও ইসলামী ফাউন্ডেশন কর্তৃক অন্তত একটি কপি হলেও সংরক্ষিত হবে, যাতে করি এই মনীষীকে সহজে জানা যায়।

বইয়ের লেখক মাওলানা এনায়েতুল্লাহ ফাহাদ বলেন, এই বইটি প্রকাশে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছেন আমার পিতা মাওলানা এনামুল হক। আরও পরামর্শ দিয়েছেন চুয়াডাঙ্গার সর্বস্তরের আলেমসমাজ। তথ্য সংগ্রহ করে এগিয়ে নিয়েছেন শফিউল্লাহ আল মামুন ও মুহিত হাসান রিদওয়ান। এই অনুষ্ঠান শুধু মোড়ক উন্মোচনেই থেমে থাকবে না! আগামীতে তারুণ্যের সম্ভাবনাময়ী কাজ হবে, ইনশাআল্লাহ।

মুফতি রুহুল আমিন ও মুফতি আজিজুল্লাহ’র সঞ্চালনায় আয়োজিত “মোড়ক উন্মোচন” ও স্মরণ শীর্ষক সেমিনারে শুরুতে কুরআন তেলাওয়াত করেছেন আন্তর্জাতিক ক্বারী মাহবুবুর রহমান, ইসলামী নাশিদ পরিবেশন করেন মুফতি শফিউল্লাহ আল মামুন। পরবর্তীতে স্থানীয় আলেমরা ক্রমান্বয়ে বক্তব্য রাখেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মাওলানা আব্দুর রাযযাক নদভী, মাওলানা ইয়াহইয়া ইউসুফ নদভী, মাওলানা আবু তাসনীম ইমদাদুল্লাহ, ইয়ামিন আলীসহ আরও অনেকেই।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, মাওলানা রুহুল আমিন, মুফতি আবু তাহের, মুফতি আব্দুর রাজ্জাক, মুফতি জুনাইদ আল হাবিবী, মাওলানা আব্দুস সামাদ, মাওলানা জহুরুল ইসলাম আজিজী, মাওলানা ইমদাদুল হক, মাওলানা হাসান মুরাদ ও মাওলানা জাহিদ হাসান প্রমুখ।