০৪:৪৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গা জেলা ওলামা দলের সদস্য সচিব মাও. আনোয়ার হোসেনকে গণপিটুনি

চুয়াডাঙ্গা জেলা ওলামা দলের সদস্য সচিব মওলানা আনোয়ার হোসেনকে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয় কয়েকজন যুবক। গত বুধবার সকাল ৭টার দিকে সদর উপজেলার দীননাথপুরে এ ঘটনা ঘটে

ঘটনার দিনই ভুক্তভোগী আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী সালমা খাতুন বাদি হয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, কাঠ ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেনের নিকট গত কয়েকদিন যাবত ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করছিল দীননাথপুর গ্রামের ইমরান, রহমান, কালাম ও মানিক। চাঁদার টাকা না পেয়ে গত বুধবার সকালে তুলে নিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অভিযুক্ত ইমরান হোসেন রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, চাঁদা দাবির কোন ঘটনা না। আনোয়ার হোসেন আমার আত্মীয়। দীর্ঘদিন যাবত আনোয়ার হোসেন তার চাচাতো মামির (স্বামী পরিত্যক্তা) সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িতে পড়েন। এ নিয়ে স্থানীয়রাসহ আমরা একাধিকবার নিষেধও করেছিলাম। গত কয়েকদিন আগেও এই বিষয় নিয়ে স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিরা সালিশও ডেকেছিলেন। উলটো আমাদের উপর তিনি উত্তেজিত হন। তবে কোন মিমাংসা হয়নি। তবে এটা কোন চাঁদাবাজির কোন ঘটনা না।

তিনি আরও বলেন, এর আগেও একাধিক নারীর সঙ্গে অবৈধভাবে সম্পর্ক ছিল। তা গ্রামের সবার অজানা নয়।

অভিযোগ তদন্তকারী কর্মকর্তা চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের পরিদর্শক (এসআই) জুয়েল রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, ভুক্তভোগীর পক্ষ থেকে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পরিদর্শণ করেছি। আনোয়ার হোসেনকে মারধর করা হয়েছে তার সত্যতাও পেয়েছি। আমরা তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

তিনি আরও বলেন, অভিযুক্তদের দাবি অনুযায়ী ওই নারীর সঙ্গে কথা বলে জেনেছি, ওই নারী বলেছেন তাদের মধ্যে কোন অবৈধ সম্পর্ক নেই। সম্পর্কের খাতিরে আনোয়ার হোসেন মাঝেমধ্যে তার বাসায় যাতায়াত করতেন। তবে বিষয়টি স্থানীয়রা অন্য দৃষ্টিতে দেখছেন এটা জানার পর নিষেধ করার পরও আনোয়ার হোসেন আসতেন বলে ওই নারী জানিয়েছেন।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

চুয়াডাঙ্গা জেলা ওলামা দলের সদস্য সচিব মাও. আনোয়ার হোসেনকে গণপিটুনি

প্রকাশের সময় : ১০:২৫:৩৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪

চুয়াডাঙ্গা জেলা ওলামা দলের সদস্য সচিব মওলানা আনোয়ার হোসেনকে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয় কয়েকজন যুবক। গত বুধবার সকাল ৭টার দিকে সদর উপজেলার দীননাথপুরে এ ঘটনা ঘটে

ঘটনার দিনই ভুক্তভোগী আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী সালমা খাতুন বাদি হয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, কাঠ ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেনের নিকট গত কয়েকদিন যাবত ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করছিল দীননাথপুর গ্রামের ইমরান, রহমান, কালাম ও মানিক। চাঁদার টাকা না পেয়ে গত বুধবার সকালে তুলে নিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অভিযুক্ত ইমরান হোসেন রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, চাঁদা দাবির কোন ঘটনা না। আনোয়ার হোসেন আমার আত্মীয়। দীর্ঘদিন যাবত আনোয়ার হোসেন তার চাচাতো মামির (স্বামী পরিত্যক্তা) সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িতে পড়েন। এ নিয়ে স্থানীয়রাসহ আমরা একাধিকবার নিষেধও করেছিলাম। গত কয়েকদিন আগেও এই বিষয় নিয়ে স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিরা সালিশও ডেকেছিলেন। উলটো আমাদের উপর তিনি উত্তেজিত হন। তবে কোন মিমাংসা হয়নি। তবে এটা কোন চাঁদাবাজির কোন ঘটনা না।

তিনি আরও বলেন, এর আগেও একাধিক নারীর সঙ্গে অবৈধভাবে সম্পর্ক ছিল। তা গ্রামের সবার অজানা নয়।

অভিযোগ তদন্তকারী কর্মকর্তা চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের পরিদর্শক (এসআই) জুয়েল রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, ভুক্তভোগীর পক্ষ থেকে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পরিদর্শণ করেছি। আনোয়ার হোসেনকে মারধর করা হয়েছে তার সত্যতাও পেয়েছি। আমরা তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

তিনি আরও বলেন, অভিযুক্তদের দাবি অনুযায়ী ওই নারীর সঙ্গে কথা বলে জেনেছি, ওই নারী বলেছেন তাদের মধ্যে কোন অবৈধ সম্পর্ক নেই। সম্পর্কের খাতিরে আনোয়ার হোসেন মাঝেমধ্যে তার বাসায় যাতায়াত করতেন। তবে বিষয়টি স্থানীয়রা অন্য দৃষ্টিতে দেখছেন এটা জানার পর নিষেধ করার পরও আনোয়ার হোসেন আসতেন বলে ওই নারী জানিয়েছেন।