০৫:৫৭ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নাটোরে ২ ট্রাক-পাওয়াট্রিলারের ত্রিমুখী সংঘর্ষ, চুয়াডাঙ্গার ফার্মপাড়ার ট্রাক চালক আকরাম নিহত

এঘটনায় পাওয়ারট্রিলার চালক আব্দুল করিম (৪৫) ও হেলপার তৌহিদুর ইসলাম (২২) আহত হন। সুযোগ বুঝে পালিয়ে যায় অপর ট্রাকের চালক ও হেলপার।

গত শুক্রবার (২৯ মার্চ) নাটোর জলমলিয়া হাইওয়ে থানাধীন নাটোর-বগুড়া সড়কে বারুহাট নামকস্থানে এ ত্রিমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় নাটোর জলমলিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশ বাদি হয়ে নাটোর সদর থানায় পালিয়ে যাওয়া অজ্ঞাতনামা ট্রাক চালকের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের সড়ক পরিবহন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

নিহত আকরাম আলী চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার ফার্মপাড়া মৃত. করিম বিশ্বাসের ছেলে। এবং পাওয়ারট্রিলার চালক আব্দুল করিম ও হেলপার তৌহিদুর ইসলাম নাটোর সদর থানাধীন মদনহাট এলাকার বাসিন্দা।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও জলমলিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জামিল হাসান অনিক রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, শুক্রবার (২৯ মার্চ) সকালে বগুড়া থেকে একটি বালুবোঝায় ট্রাক (চুয়াডাঙ্গা-ট-১১-০৬৭৯) নাটোরের দিকে যাচ্ছিল। নাটোরের বারুহাট নামকস্থানে পৌছালে অপরদিক থেকে বেপরোয়া গতিয়ে আসা কাঁচা মরিচ বোঝায় একটি ট্রাক (সাতক্ষীরা-ট-১১-০০৬০) সামনের পাওয়াট্রিলারকে ওভারটেক করতে যায়। এতে দুই ট্রাক ও পাওয়ারট্রিলারের মধ্যে ত্রিমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে বালুবোঝোয় ট্রাকটি সড়কের পাশের খাদের মধ্যে উলটে যায়। ক্ষতিগ্রস্থ হয় পাওয়ারট্রিলারেরও। সুযোগ বুঝে পালিয়ে যায় কাচামরিচ বোঝায় ট্রাকের চালক ও হেলপার।

পরে নাটোর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা এবং জলমলিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশের সহযোগীতায় অহত অবস্থায় বালুবোঝায় ট্রাকের চালক আকরাম আলী, পাওয়ারট্রিলারের চালক আব্দুল করিম ও হেলপার তৌহিদুর ইসলামকে উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে পাওয়ারট্রিলার চালক আব্দুল করিম ও হেলপার তৌহিদুর ইসলাম বাড়ি ফিরলেও ট্রাক চালক আকরাম আলীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন চিকিৎসক। পরে অবস্থার অবনতি হলে নেয়া হয় ঢাকার জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পূর্নবাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল)। সেখানে গতকাল শনিবার সকাল ৭ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আকরাম আলী মারা যান।

এদিকে, ময়নাতদন্ত শেষে শনিবার (৩০ মার্চ) বিকেলে আকরামের মরদেহ চুয়াডাঙ্গা ফার্মপাড়ায় নিজ বাড়িতে পৌছালে এলাকায় নেমে আসে শোকের ছায়া। বাবাকে হারিয়ে দুই ছেলে-মেয়েকে কান্নায় ভেঙ্গে পড়তে দেখা যায়। রাতেই ফার্মপাড়াস্থ খাদেমুল ইসলাম মাদরাসায় জানাযার নামায সম্পন্ন করা হয়। পরে চুয়াডাঙ্গা রেল স্টেশন সংলগ্ন জান্নাতুল মওলা জামে মসজিদের কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও জলমলিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জামিল হাসান অনিক রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, শুক্রবার সকালে দুটি ট্রাক ও পাওয়াট্রিলারের ত্রিমুখি সংঘর্ষ হয়। পরদিন সকালে আহত ট্রাক চালক আকরাম ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তার বাড়ি চুয়াডাঙ্গা সদর থানাধীন ফার্মপাড়াতে। ঘটনার পর মরিচবোঝাই ট্রাকের চালক পালিয়ে গেছেন। দুটি ট্রাক ও পাওয়ারট্রলি জব্দ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে পালিয়ে যাওয়া অজ্ঞাতনামা ট্রাক চালকের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের সড়ক পরিবহন আইনের ৯৫/৯৮/১০৫ ধারা অনুযায়ী নাটোর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

নাটোরে ২ ট্রাক-পাওয়াট্রিলারের ত্রিমুখী সংঘর্ষ, চুয়াডাঙ্গার ফার্মপাড়ার ট্রাক চালক আকরাম নিহত

প্রকাশের সময় : ০১:১৪:৩৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩১ মার্চ ২০২৪

এঘটনায় পাওয়ারট্রিলার চালক আব্দুল করিম (৪৫) ও হেলপার তৌহিদুর ইসলাম (২২) আহত হন। সুযোগ বুঝে পালিয়ে যায় অপর ট্রাকের চালক ও হেলপার।

গত শুক্রবার (২৯ মার্চ) নাটোর জলমলিয়া হাইওয়ে থানাধীন নাটোর-বগুড়া সড়কে বারুহাট নামকস্থানে এ ত্রিমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় নাটোর জলমলিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশ বাদি হয়ে নাটোর সদর থানায় পালিয়ে যাওয়া অজ্ঞাতনামা ট্রাক চালকের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের সড়ক পরিবহন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

নিহত আকরাম আলী চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার ফার্মপাড়া মৃত. করিম বিশ্বাসের ছেলে। এবং পাওয়ারট্রিলার চালক আব্দুল করিম ও হেলপার তৌহিদুর ইসলাম নাটোর সদর থানাধীন মদনহাট এলাকার বাসিন্দা।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও জলমলিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জামিল হাসান অনিক রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, শুক্রবার (২৯ মার্চ) সকালে বগুড়া থেকে একটি বালুবোঝায় ট্রাক (চুয়াডাঙ্গা-ট-১১-০৬৭৯) নাটোরের দিকে যাচ্ছিল। নাটোরের বারুহাট নামকস্থানে পৌছালে অপরদিক থেকে বেপরোয়া গতিয়ে আসা কাঁচা মরিচ বোঝায় একটি ট্রাক (সাতক্ষীরা-ট-১১-০০৬০) সামনের পাওয়াট্রিলারকে ওভারটেক করতে যায়। এতে দুই ট্রাক ও পাওয়ারট্রিলারের মধ্যে ত্রিমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে বালুবোঝোয় ট্রাকটি সড়কের পাশের খাদের মধ্যে উলটে যায়। ক্ষতিগ্রস্থ হয় পাওয়ারট্রিলারেরও। সুযোগ বুঝে পালিয়ে যায় কাচামরিচ বোঝায় ট্রাকের চালক ও হেলপার।

পরে নাটোর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা এবং জলমলিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশের সহযোগীতায় অহত অবস্থায় বালুবোঝায় ট্রাকের চালক আকরাম আলী, পাওয়ারট্রিলারের চালক আব্দুল করিম ও হেলপার তৌহিদুর ইসলামকে উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে পাওয়ারট্রিলার চালক আব্দুল করিম ও হেলপার তৌহিদুর ইসলাম বাড়ি ফিরলেও ট্রাক চালক আকরাম আলীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন চিকিৎসক। পরে অবস্থার অবনতি হলে নেয়া হয় ঢাকার জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পূর্নবাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল)। সেখানে গতকাল শনিবার সকাল ৭ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আকরাম আলী মারা যান।

এদিকে, ময়নাতদন্ত শেষে শনিবার (৩০ মার্চ) বিকেলে আকরামের মরদেহ চুয়াডাঙ্গা ফার্মপাড়ায় নিজ বাড়িতে পৌছালে এলাকায় নেমে আসে শোকের ছায়া। বাবাকে হারিয়ে দুই ছেলে-মেয়েকে কান্নায় ভেঙ্গে পড়তে দেখা যায়। রাতেই ফার্মপাড়াস্থ খাদেমুল ইসলাম মাদরাসায় জানাযার নামায সম্পন্ন করা হয়। পরে চুয়াডাঙ্গা রেল স্টেশন সংলগ্ন জান্নাতুল মওলা জামে মসজিদের কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও জলমলিয়া হাইওয়ে থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) জামিল হাসান অনিক রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, শুক্রবার সকালে দুটি ট্রাক ও পাওয়াট্রিলারের ত্রিমুখি সংঘর্ষ হয়। পরদিন সকালে আহত ট্রাক চালক আকরাম ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তার বাড়ি চুয়াডাঙ্গা সদর থানাধীন ফার্মপাড়াতে। ঘটনার পর মরিচবোঝাই ট্রাকের চালক পালিয়ে গেছেন। দুটি ট্রাক ও পাওয়ারট্রলি জব্দ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে পালিয়ে যাওয়া অজ্ঞাতনামা ট্রাক চালকের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের সড়ক পরিবহন আইনের ৯৫/৯৮/১০৫ ধারা অনুযায়ী নাটোর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।