০৪:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে চেক বিতরণ করলেন এমপি টগর

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে টিআর কর্মসূচির আওতায়য় চেক বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (৮ জুলাই) গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ (টিআর) কর্মসূচির আওতায় বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে চেক বিতরণ করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ফাতেমা-তুজ-জোহরার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপকারভোগীদের মধ্যে চেক তুলে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগর টগর এমপি।

চেক বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগর টগর এমপি বলেন, শেখ হাসিনা সরকার বাংলদেশকে প্রতি মুহূর্তে উন্নয়নের চূড়ায় পৌঁছানোর পিছনে কাজ করে চলেছে এবং তা সফলের পথে। বর্তমান দেশে শিক্ষা, চিকিৎসা, খাদ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থা, অর্থনীতিসহ সকল ক্ষেত্র আলোকিত করার পিছনে এই সরকারই পারে, অন্যরা তা কোনো দিনই করতে পারে না। তিনি আরও বলেন, কোনো কুচক্রিমহল আওয়ামী লীগ সরকারকে দমাতে পারবে না। দেশের মানুষ দেশের উন্নয়নের স্বার্থে আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য সরকার চায় না।

তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল দিকে খেয়াল করেন। তিনি মানুষের কথা ভেবেই রাত দিন কাটান। তার প্রতিটি চিন্তা এই দেশের মানুেেষর জন্য। আজ দেশের প্রতিটি মানুষ শান্তিতে আছে। আজ গ্রামে গঞ্জে পাকা রাস্তা হয়েছে। মানুষের জীবনমান দিন দিন উন্নত হচ্ছে। আমার চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের প্রায় সব জায়গায় পাকা রাস্তা হয়েছে। দু এক জায়গায় বাকি আছে, তাও কাজ চলছে। দ্রুতই তাইও হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নঈম হাসান জোর্য়াদ্দার, সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এসএম আশিস মোমতাজ, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান গরিব রুহানী মাসুম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাসুমা খাতুন প্রমুখ। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হক, উপকারভোগী সংগঠনের প্রতিনিধি বেগমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হামিদুল্লাহ। উপজেলা পল্লী উন্নয়ন সমবায় কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা ত্রাণ ও পুনবার্সন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান। অনুষ্ঠানে ৩১টি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ৫৫ হাজার, ৬০ হাজার ও ১ লাখ টাকা করে মোট ২০ লাখ টকার চেক বিতরণ করা হয়।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

অনির্দিষ্টকালের জন্য দেশের সব স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা

চুয়াডাঙ্গায় ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে চেক বিতরণ করলেন এমপি টগর

প্রকাশের সময় : ০৯:১৫:০০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই ২০২৪

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে টিআর কর্মসূচির আওতায়য় চেক বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (৮ জুলাই) গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ (টিআর) কর্মসূচির আওতায় বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে চেক বিতরণ করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ফাতেমা-তুজ-জোহরার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপকারভোগীদের মধ্যে চেক তুলে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগর টগর এমপি।

চেক বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগর টগর এমপি বলেন, শেখ হাসিনা সরকার বাংলদেশকে প্রতি মুহূর্তে উন্নয়নের চূড়ায় পৌঁছানোর পিছনে কাজ করে চলেছে এবং তা সফলের পথে। বর্তমান দেশে শিক্ষা, চিকিৎসা, খাদ্য, যোগাযোগ ব্যবস্থা, অর্থনীতিসহ সকল ক্ষেত্র আলোকিত করার পিছনে এই সরকারই পারে, অন্যরা তা কোনো দিনই করতে পারে না। তিনি আরও বলেন, কোনো কুচক্রিমহল আওয়ামী লীগ সরকারকে দমাতে পারবে না। দেশের মানুষ দেশের উন্নয়নের স্বার্থে আওয়ামী লীগ ছাড়া অন্য সরকার চায় না।

তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল দিকে খেয়াল করেন। তিনি মানুষের কথা ভেবেই রাত দিন কাটান। তার প্রতিটি চিন্তা এই দেশের মানুেেষর জন্য। আজ দেশের প্রতিটি মানুষ শান্তিতে আছে। আজ গ্রামে গঞ্জে পাকা রাস্তা হয়েছে। মানুষের জীবনমান দিন দিন উন্নত হচ্ছে। আমার চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের প্রায় সব জায়গায় পাকা রাস্তা হয়েছে। দু এক জায়গায় বাকি আছে, তাও কাজ চলছে। দ্রুতই তাইও হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নঈম হাসান জোর্য়াদ্দার, সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এসএম আশিস মোমতাজ, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান গরিব রুহানী মাসুম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাসুমা খাতুন প্রমুখ। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এনামুল হক, উপকারভোগী সংগঠনের প্রতিনিধি বেগমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হামিদুল্লাহ। উপজেলা পল্লী উন্নয়ন সমবায় কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা ত্রাণ ও পুনবার্সন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান। অনুষ্ঠানে ৩১টি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ৫৫ হাজার, ৬০ হাজার ও ১ লাখ টাকা করে মোট ২০ লাখ টকার চেক বিতরণ করা হয়।