০৫:৫২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্সের নির্বাচন: শেষ দিনে ২৯ জন ব্যবসায়ীর মনোনয়ন দাখিল

শেষ দিনে চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কর্মাস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির দ্বিবার্ষিক সাধারণ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ২৯ জন ব্যবসায়ী। মনোনয়নপত্র ক্রয় করেছিলেন ৩০ জন ব্যবসায়ী। ১৯ পদের বিপরীতে একজন বাদে ২৯ জন ব্যবসায়ী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। অর্থাৎ উত্তোলনেরকারীদের মধ্যে দীলিপ কুমার আগরওয়ালা মনোনয়নপত্র দাখিল করেননি।

চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি সূত্রে জানা যায়, শনিবার (১৫ জুন) বিকেল ৫টা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ছিল। এ দিন বিকেল ৫টা পর্যন্ত ১৪টি সাধারণ সদস্য পরিচালক পদের বিপরীতে উত্তোলনকৃত ২২টিই ও ৫টি সহযোগী সদস্য পরিচালক পদের বিপরীতে উত্তোলনকৃত ৮টির মধ্যে ৭টি মনোনয়নপত্র জমা দেন ব্যবসায়ীরা।

সাধারণ সদস্যদের মধ্যে বর্তমান সভাপতি ইয়াকুব হোসেন মালিক, মো. শাহারিন হক মালিক, মঞ্জুরুল আলম মালিক লার্জ, সালাউদ্দীন মো. মতুর্জা, এস এম তসলিম আরিফ বাবু, একেএম সালাউদ্দীন মিঠু, মো. আরিফ হোসেন জোয়ার্দ্দার, তাজুল ইসলাম, সেলিম আহমেদ, হারুন অর রশিদ, কিশোর কুমার, এনামুল হক শাহ, মতিয়ার রহমান, শামসুজ্জামান, আব্দুল হাকিম মুন্সী, মফিজুর রহমান, ইমতিয়াজ আহমেদ মিঠুন, মো. শহিদুল ইসলাম, হাবিবুল্লা জোয়ার্দ্দার, সুমন পারভেজ খান, মকলেচুর রহমান ও গোলাম মস্তফা বাদল মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সহযোগী সদস্যদের মধ্যে নাসির আহাদ জোয়ার্দ্দার, এএনএম আরিফ, সুরেশ কুমার আগরওয়ালা, মো. কামরুল ইসলাম, পবিত্র কুমার আগরওয়ালা, মো. রোকনুজ্জামান, মো. সালাউদ্দীন ও বিশ্বাস মিলন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।


নির্বাচনী তফসিল অনুযায়ী মোট পরিচালক পদ ১৯টি। ১৪ জন পরিচালক সাধারণ সদস্য কর্তৃক ও ৫ জন পরিচালক সহযোগী সদস্য কর্তৃক নির্বাচিত হবেন। এ নির্বাচনে মোট সাধারণ সদস্য ভোটার সংখ্যা ৫৮৭ জন ও সহযোগী সদস্য ভোটার সংখ্যা ২১৬ জন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৩ জুন রোববার বিকেল তিনটা থেকে ৫টা পর্যন্ত।

আগামী ৩ আগস্ট শনিবার সকাল সাড়ে আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে সংগঠনটির নিজস্ব ভবনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাড. মো. আশরাফ আলী বলেন, এখন পর্যন্ত নির্বাচনের সকল কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা হচ্ছে। একটি সুন্দর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্সের নির্বাচন: শেষ দিনে ২৯ জন ব্যবসায়ীর মনোনয়ন দাখিল

প্রকাশের সময় : ১২:৩১:৩৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪

শেষ দিনে চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কর্মাস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির দ্বিবার্ষিক সাধারণ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন ২৯ জন ব্যবসায়ী। মনোনয়নপত্র ক্রয় করেছিলেন ৩০ জন ব্যবসায়ী। ১৯ পদের বিপরীতে একজন বাদে ২৯ জন ব্যবসায়ী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। অর্থাৎ উত্তোলনেরকারীদের মধ্যে দীলিপ কুমার আগরওয়ালা মনোনয়নপত্র দাখিল করেননি।

চুয়াডাঙ্গা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি সূত্রে জানা যায়, শনিবার (১৫ জুন) বিকেল ৫টা পর্যন্ত মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ছিল। এ দিন বিকেল ৫টা পর্যন্ত ১৪টি সাধারণ সদস্য পরিচালক পদের বিপরীতে উত্তোলনকৃত ২২টিই ও ৫টি সহযোগী সদস্য পরিচালক পদের বিপরীতে উত্তোলনকৃত ৮টির মধ্যে ৭টি মনোনয়নপত্র জমা দেন ব্যবসায়ীরা।

সাধারণ সদস্যদের মধ্যে বর্তমান সভাপতি ইয়াকুব হোসেন মালিক, মো. শাহারিন হক মালিক, মঞ্জুরুল আলম মালিক লার্জ, সালাউদ্দীন মো. মতুর্জা, এস এম তসলিম আরিফ বাবু, একেএম সালাউদ্দীন মিঠু, মো. আরিফ হোসেন জোয়ার্দ্দার, তাজুল ইসলাম, সেলিম আহমেদ, হারুন অর রশিদ, কিশোর কুমার, এনামুল হক শাহ, মতিয়ার রহমান, শামসুজ্জামান, আব্দুল হাকিম মুন্সী, মফিজুর রহমান, ইমতিয়াজ আহমেদ মিঠুন, মো. শহিদুল ইসলাম, হাবিবুল্লা জোয়ার্দ্দার, সুমন পারভেজ খান, মকলেচুর রহমান ও গোলাম মস্তফা বাদল মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সহযোগী সদস্যদের মধ্যে নাসির আহাদ জোয়ার্দ্দার, এএনএম আরিফ, সুরেশ কুমার আগরওয়ালা, মো. কামরুল ইসলাম, পবিত্র কুমার আগরওয়ালা, মো. রোকনুজ্জামান, মো. সালাউদ্দীন ও বিশ্বাস মিলন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।


নির্বাচনী তফসিল অনুযায়ী মোট পরিচালক পদ ১৯টি। ১৪ জন পরিচালক সাধারণ সদস্য কর্তৃক ও ৫ জন পরিচালক সহযোগী সদস্য কর্তৃক নির্বাচিত হবেন। এ নির্বাচনে মোট সাধারণ সদস্য ভোটার সংখ্যা ৫৮৭ জন ও সহযোগী সদস্য ভোটার সংখ্যা ২১৬ জন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৩ জুন রোববার বিকেল তিনটা থেকে ৫টা পর্যন্ত।

আগামী ৩ আগস্ট শনিবার সকাল সাড়ে আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে সংগঠনটির নিজস্ব ভবনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাড. মো. আশরাফ আলী বলেন, এখন পর্যন্ত নির্বাচনের সকল কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা হচ্ছে। একটি সুন্দর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।