০১:৫০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় ভ্যান হারিয়ে স্ত্রীসহ অনবরত কাঁদছেন ৭৭ বছর বয়সী কিয়ামত আলী

বৃদ্ধ কিয়ামত আলী (৭৭) চুয়াডাঙ্গা শহরের রেলপাড়ার গ্রীনফুড মালিক নাসির উদ্দীন জোয়ার্দ্দারের বাড়িয়ে বিনা ভাড়ায় বসবাস করে আসছেন। গতকাল শুক্রবার (৭ জুন) রেলপাড়ার ওই বাড়ির সামনে থেকে তালা ভেঙ্গে ভ্যানটি চুরি করে নিয়ে যায় চোর। এখন একমাত্র আয়ের অবলম্বন পাখিভ্যানটি হারিয়ে স্ত্রীকে নিয়ে এদিক ওদিক ছোটাছুটি করছেন।

এদিকে, শনিবার (৮ জুন) সকালে সদর থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলেন বৃদ্ধ কিয়ামত আলী। কোন লাভ হয়নি। বরং থানা থেকে উলটো ভুক্তভোগী বৃদ্ধকে জানানো হয় ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে পুলিশকে দেয়ার জন্য।

পরে বিকেলে রেডিও চুয়াডাঙ্গার প্রতিবেদক সদর থানার ওসিকে মোবাইলে বিষয়টি জানালে তাৎক্ষনিক বৃদ্ধকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়। এরপর ভ্যান হারানোর ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন বৃদ্ধ কিয়ামত আলী।

বৃদ্ধ কিয়ামত আলী রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, আমি আসহায়, আমার কোন জমি-বাড়ি নেই। শহরের রেলপাড়ার নাসির উদ্দীন জোয়ার্দ্দারের বাড়িতে বিনা ভাড়ায় আজ ২৫ বছর যাবত বসবাস করছি স্ত্রীকে নিয়ে। শুক্রবার বাড়ির সামনে তালা ভেঙ্গে ভ্যানটি কে বা কারা নিয়ে যায়। আজ সকালে সদর থানায় গেলে সেখান থেকে জানানো হয় ঘটনাস্থলের সামনে জেলা কাস্টমস, একসাইজ ও ভ্যাট অফিসের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে নিয়ে আসতে বলা হয়। আমার নেই মোবাইল (স্মার্টফোন)। আমি এসবের কিছুই বুঝিনা। আমি কিভাবে ভিডিও করব?

তিনি আরও বলেন, বৃদ্ধ বয়সে ভ্যান চালিয়েই কোন রকম সংসার চলে। এখন কিভাবে চলব বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তিনি।

কিয়ামত আলীর স্ত্রী বৃদ্ধা জাহানারা খাতুন কাঁদতে কাঁদতে রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, বয়সের ভারে প্যাডেলচালিত ভ্যান চালাতে না পারায় বছর পাঁচ আগে ধারকর্জ করে ব্যাটারিচালিত ভ্যানটি কেনা হয়। এরপর থেকে টেনেটুনে দুজনের সংসার চলে। নিজেদের কোন কিছুই নেই। অন্যের বাড়িতে থাকি। ভ্যানটি চুরি হওয়ায় না খেয়ে থাকতে হবে আমাদের। কেউ যদি একটা ব্যবস্থা করে দিতো তাহলে কোন রকম নুন-ভাত খেয়ে আমরা চলতে পারব।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) শেখ সেকেন্দার আলী রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, উনি (বৃদ্ধ) কার কাছে এসেছিলেন আমি জানিনা। উনার সাথে আমার দেখা হয়নি। আমি অসুস্থ। আমার নাম্বার দিয়ে উনাকে আবার পাঠিয়ে দিন। আমি বিষয়টি দেখব।

এরপরই সদর থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইয়াসিন আরাফাত রেডিও চুয়াডাঙ্গার প্রতিবেদকের নিকট কল করে বলেন, সকালে বৃদ্ধ থানাতে যে সময় এসেছিলেন সেই সময় আমি ছিলাম না। অন্য কেউ ছিল হয়তো। পরে প্রতিবেদকের মাধ্যমে বিকেলে থানায় গিয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন বৃদ্ধ কিয়ামত আলী।

One thought on “চুয়াডাঙ্গায় ভ্যান হারিয়ে স্ত্রীসহ অনবরত কাঁদছেন ৭৭ বছর বয়সী কিয়ামত আলী

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

চুয়াডাঙ্গাসহ সারাদেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

চুয়াডাঙ্গায় ভ্যান হারিয়ে স্ত্রীসহ অনবরত কাঁদছেন ৭৭ বছর বয়সী কিয়ামত আলী

প্রকাশের সময় : ০৮:০৪:০৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ জুন ২০২৪

বৃদ্ধ কিয়ামত আলী (৭৭) চুয়াডাঙ্গা শহরের রেলপাড়ার গ্রীনফুড মালিক নাসির উদ্দীন জোয়ার্দ্দারের বাড়িয়ে বিনা ভাড়ায় বসবাস করে আসছেন। গতকাল শুক্রবার (৭ জুন) রেলপাড়ার ওই বাড়ির সামনে থেকে তালা ভেঙ্গে ভ্যানটি চুরি করে নিয়ে যায় চোর। এখন একমাত্র আয়ের অবলম্বন পাখিভ্যানটি হারিয়ে স্ত্রীকে নিয়ে এদিক ওদিক ছোটাছুটি করছেন।

এদিকে, শনিবার (৮ জুন) সকালে সদর থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলেন বৃদ্ধ কিয়ামত আলী। কোন লাভ হয়নি। বরং থানা থেকে উলটো ভুক্তভোগী বৃদ্ধকে জানানো হয় ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে পুলিশকে দেয়ার জন্য।

পরে বিকেলে রেডিও চুয়াডাঙ্গার প্রতিবেদক সদর থানার ওসিকে মোবাইলে বিষয়টি জানালে তাৎক্ষনিক বৃদ্ধকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়। এরপর ভ্যান হারানোর ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন বৃদ্ধ কিয়ামত আলী।

বৃদ্ধ কিয়ামত আলী রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, আমি আসহায়, আমার কোন জমি-বাড়ি নেই। শহরের রেলপাড়ার নাসির উদ্দীন জোয়ার্দ্দারের বাড়িতে বিনা ভাড়ায় আজ ২৫ বছর যাবত বসবাস করছি স্ত্রীকে নিয়ে। শুক্রবার বাড়ির সামনে তালা ভেঙ্গে ভ্যানটি কে বা কারা নিয়ে যায়। আজ সকালে সদর থানায় গেলে সেখান থেকে জানানো হয় ঘটনাস্থলের সামনে জেলা কাস্টমস, একসাইজ ও ভ্যাট অফিসের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে নিয়ে আসতে বলা হয়। আমার নেই মোবাইল (স্মার্টফোন)। আমি এসবের কিছুই বুঝিনা। আমি কিভাবে ভিডিও করব?

তিনি আরও বলেন, বৃদ্ধ বয়সে ভ্যান চালিয়েই কোন রকম সংসার চলে। এখন কিভাবে চলব বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তিনি।

কিয়ামত আলীর স্ত্রী বৃদ্ধা জাহানারা খাতুন কাঁদতে কাঁদতে রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, বয়সের ভারে প্যাডেলচালিত ভ্যান চালাতে না পারায় বছর পাঁচ আগে ধারকর্জ করে ব্যাটারিচালিত ভ্যানটি কেনা হয়। এরপর থেকে টেনেটুনে দুজনের সংসার চলে। নিজেদের কোন কিছুই নেই। অন্যের বাড়িতে থাকি। ভ্যানটি চুরি হওয়ায় না খেয়ে থাকতে হবে আমাদের। কেউ যদি একটা ব্যবস্থা করে দিতো তাহলে কোন রকম নুন-ভাত খেয়ে আমরা চলতে পারব।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) শেখ সেকেন্দার আলী রেডিও চুয়াডাঙ্গাকে বলেন, উনি (বৃদ্ধ) কার কাছে এসেছিলেন আমি জানিনা। উনার সাথে আমার দেখা হয়নি। আমি অসুস্থ। আমার নাম্বার দিয়ে উনাকে আবার পাঠিয়ে দিন। আমি বিষয়টি দেখব।

এরপরই সদর থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইয়াসিন আরাফাত রেডিও চুয়াডাঙ্গার প্রতিবেদকের নিকট কল করে বলেন, সকালে বৃদ্ধ থানাতে যে সময় এসেছিলেন সেই সময় আমি ছিলাম না। অন্য কেউ ছিল হয়তো। পরে প্রতিবেদকের মাধ্যমে বিকেলে থানায় গিয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন বৃদ্ধ কিয়ামত আলী।