১১:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় অতিরিক্ত মুল্যে পণ্য বিক্রি করলেই কঠোর ব্যবস্থা : জেলা প্রশাসক

  • হুসাইন মালিক
  • প্রকাশের সময় : ০৪:০২:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ মার্চ ২০২৪
  • ১৩১ বার

এসময় বাজার অভিযানে রমজানে প্রয়োজনীয় খেজুর, তেল, ডাল, মাছ মাংসসহ সব ধরনের সবজিসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম স্বাভাবিক ও সহনীয় পর্যায়ে রাখার জন্য ব্যবসায়ী সতর্ক করা হয়। অভিযানে কোনো প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা না করে প্রথম দিনে শুধু সতর্ক করা হয়েছে। পরবর্তীতে অভিযোগ পেলে জরিমানা করা হবে বলে জানান ডিসি ও এসপি।

এসময় ফুটপাত দখল করে পণ্য বিক্রি করা ব্যাবসায়িদের সর্তক করানো হয় অভিযানে। একই ভাবে রোজার মাসে যদি কোনো পন্য নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি নিলে আইনুযায়ি ব্যাবস্থার নেওয়ার হুশিয়ারি দেন জেলা প্রশাসক ড.কিসিঞ্জার চাকমা।

অভিযানকালে উপস্থিত ছিলেন, চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কবির হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফাতেমা-তুজ-জোহরা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাদাত হোসেন, চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিভাষ চন্দ্র সাহা, জেলা মার্কেটিং অফিসার শহিদুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ সেকেন্দার আলি, চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি রাজীব হাসান কচি, চেম্বার অব-কর্মাসের পরিচালক মঞ্জুরুল আলম মালিক লার্জ, চুয়াডাঙ্গা দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইবরুল হাসান জোর্য়াদ্দার ইবু, প্রচার সম্পাদক মাফিজুর রহমান মাফি প্রমুখ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশের চৌকস টিম।

অভিযানের শেষ পর্বে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার আর এম ফয়জুর রহমান বলেন, আমরা পুরো পবিত্র রমজান মাসজুড়ে পরিচালিত অভিযানে আমার পুলিশ সার্বক্ষণিকভাবে মনিটরিং টিমকে সাপোর্ট দেবে। আর ব্যবসায়ীদের প্রতি অনুরোধ থাকবে, পবিত্র এই মাসে যেন, তারা অতিরিক্ত মুল্যে পণ্য বিক্রি না করেন। আর আমরা আজ কোনো জরিমানা করছি। আজ মুলত আমি ও ডিসি মহোদয় ব্যবসায়ীদের সতর্ক করার জন্য বাজারে এসেছি।

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক ড.কিসিঞ্জার চাকমা বলেন, পবিত্র রমজান মাসে বাজার মনিটরিং করা হলো ব্যবসায়ীদের সর্তক বার্তা দেয়ার জন্য। কোনো পন্যের কৃত্তিম সংকট কাজে লাগিয়ে যদি দাম বেশি নেয়। তাহলে আইনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। রমজানে কোনো পন্যে যেন অস্থিরতা না তৈরি হয় সেজন্য এই বাজার মনিটরিং। বাজারের উচ্চমূল্যে কোনো ক্রেতাদের যেন জিম্মি না করতে পারে সেজন্য সচেতন করা হয়েছে ব্যবসায়ীদের। এই রমজান মাস জুড়ে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এএইচ

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

চুয়াডাঙ্গাসহ সারাদেশে ২২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

চুয়াডাঙ্গায় অতিরিক্ত মুল্যে পণ্য বিক্রি করলেই কঠোর ব্যবস্থা : জেলা প্রশাসক

প্রকাশের সময় : ০৪:০২:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ মার্চ ২০২৪

এসময় বাজার অভিযানে রমজানে প্রয়োজনীয় খেজুর, তেল, ডাল, মাছ মাংসসহ সব ধরনের সবজিসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম স্বাভাবিক ও সহনীয় পর্যায়ে রাখার জন্য ব্যবসায়ী সতর্ক করা হয়। অভিযানে কোনো প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা না করে প্রথম দিনে শুধু সতর্ক করা হয়েছে। পরবর্তীতে অভিযোগ পেলে জরিমানা করা হবে বলে জানান ডিসি ও এসপি।

এসময় ফুটপাত দখল করে পণ্য বিক্রি করা ব্যাবসায়িদের সর্তক করানো হয় অভিযানে। একই ভাবে রোজার মাসে যদি কোনো পন্য নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি নিলে আইনুযায়ি ব্যাবস্থার নেওয়ার হুশিয়ারি দেন জেলা প্রশাসক ড.কিসিঞ্জার চাকমা।

অভিযানকালে উপস্থিত ছিলেন, চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কবির হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফাতেমা-তুজ-জোহরা, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাদাত হোসেন, চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিভাষ চন্দ্র সাহা, জেলা মার্কেটিং অফিসার শহিদুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ সেকেন্দার আলি, চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর আলম মালিক খোকন, চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি রাজীব হাসান কচি, চেম্বার অব-কর্মাসের পরিচালক মঞ্জুরুল আলম মালিক লার্জ, চুয়াডাঙ্গা দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইবরুল হাসান জোর্য়াদ্দার ইবু, প্রচার সম্পাদক মাফিজুর রহমান মাফি প্রমুখ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশের চৌকস টিম।

অভিযানের শেষ পর্বে চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার আর এম ফয়জুর রহমান বলেন, আমরা পুরো পবিত্র রমজান মাসজুড়ে পরিচালিত অভিযানে আমার পুলিশ সার্বক্ষণিকভাবে মনিটরিং টিমকে সাপোর্ট দেবে। আর ব্যবসায়ীদের প্রতি অনুরোধ থাকবে, পবিত্র এই মাসে যেন, তারা অতিরিক্ত মুল্যে পণ্য বিক্রি না করেন। আর আমরা আজ কোনো জরিমানা করছি। আজ মুলত আমি ও ডিসি মহোদয় ব্যবসায়ীদের সতর্ক করার জন্য বাজারে এসেছি।

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক ড.কিসিঞ্জার চাকমা বলেন, পবিত্র রমজান মাসে বাজার মনিটরিং করা হলো ব্যবসায়ীদের সর্তক বার্তা দেয়ার জন্য। কোনো পন্যের কৃত্তিম সংকট কাজে লাগিয়ে যদি দাম বেশি নেয়। তাহলে আইনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। রমজানে কোনো পন্যে যেন অস্থিরতা না তৈরি হয় সেজন্য এই বাজার মনিটরিং। বাজারের উচ্চমূল্যে কোনো ক্রেতাদের যেন জিম্মি না করতে পারে সেজন্য সচেতন করা হয়েছে ব্যবসায়ীদের। এই রমজান মাস জুড়ে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এএইচ