০৪:৩১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ভারতের মুখোমুখি বাংলাদেশ

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দুই গ্রুপে বাংলাদেশ ও ভারত খেলবে । তাতে কী! বিশ্বকাপের আগেই প্রতিবেশী ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ দল। নিউইয়র্কে রোহিত শর্মার দলের বিপক্ষে আইসিসির আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে নাজমুল হোসেনের দল।

আইসিসি ও বিসিবি এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তুতি ম্যাচের সূচি ও প্রতিপক্ষ ঘোষণা না করলেও সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র প্রথম আলোকে জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা একরকম নিশ্চিত। তবে আইসিসি থেকে চূড়ান্তভাবে জানার আগে এ ব্যাপারে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগ কোনো মন্তব্য করতে রাজি নয়।

অন্যান্য বিশ্বকাপের আগে প্রতিটি দলের দুটি করে আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা বাধ্যতামূলক থাকে। কিন্তু এবারের বিশ্বকাপ যুক্তরাষ্ট্র এবং ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জ মিলিয়ে হচ্ছে বলে এবং যুক্তরাষ্ট্রে ম্যাচ আয়োজন এবং অন্যান্য খরচ অনেক ব্যয়বহুল বলে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার বিষয়টি আইসিসি থেকেই কিছুটা শিথিল রাখা হচ্ছে। কোনো দল চাইলে সর্বোচ্চ দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে পারবে, আবার কোনো দল চাইলে একটি প্রস্তুতি ম্যাচও খেলতে পারবে।

বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টির সিরিজ খেলবে। এরপর যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে হিউস্টনে যুক্তরাষ্ট্র দলের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবেই খেলবে তিন ম্যাচের সিরিজ। ম্যাচ তিনটি হবে ২১, ২৩ ও ২৫ মে। আর প্রস্তুতি ম্যাচ দুটির সম্ভাব্য তারিখ ২৮ মে ও ১ জুন।

এ অবস্থায় ভ্রমণক্লান্তি এবং বেশি ম্যাচ খেলার ধকলের কথা চিন্তা করে বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ দুটি আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে নাকি একটি, সে ব্যাপারে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি বিসিবি। সিদ্ধান্তের অনেকটাই নির্ভর করছে প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে ও টিম ম্যানেজমেন্টের ওপর।

জানা গেছে, ভারত ছাড়াও বিসিবিকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে আরেকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে। কিন্তু বিশ্বকাপে যেহেতু নেদারল্যান্ডস বাংলাদেশেরই গ্রুপে আছে, বিসিবি তাদের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে না বলে জানিয়েছে আইসিসিকে। ভারত ছাড়া আর কোনো দলের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেললেও বাংলাদেশ তুলনামূলক বড় কোনো দলের বিপক্ষেই সেটা খেলতে চায় বলে জানা গেছে।

এ ক্ষেত্রে ম্যাচের ভেন্যুও গুরুত্বপূর্ণ বিসিবির কাছে। বিশ্বকাপে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠেয় বাংলাদেশের গ্রুপ পর্বের ম্যাচ দুটি হবে ডালাস ও নিউইয়র্কে। ৮ জুন ডালাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলার পর ১০ জুন নিউইয়র্কে প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটি নিউইয়র্কে হবে বলে বিশ্বকাপের ম্যাচের জন্য সেখানকার কন্ডিশন বুঝতে সুবিধাই হবে বাংলাদেশের। আরেকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে হলে সেটা ডালাস বা ডালাস থেকে সড়কপথে সাড়ে ৩ ঘণ্টা দূরত্বের হিউস্টনে খেলতে চাইবে বাংলাদেশ। যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রস্তুতিমূলক সিরিজটাও হবে সেখানেই।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অন্য দুটি ম্যাচ হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ত্রিনিদাদ ও সেন্ট ভিনসেন্টে। ১৩ জুন ত্রিনিদাদে প্রতিপক্ষ নেদারল্যান্ডস ও ১৭ জুন সেন্ট ভিনসেন্টে নেপাল।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ভারতের মুখোমুখি বাংলাদেশ

প্রকাশের সময় : ১২:২৩:২৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৪

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দুই গ্রুপে বাংলাদেশ ও ভারত খেলবে । তাতে কী! বিশ্বকাপের আগেই প্রতিবেশী ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ দল। নিউইয়র্কে রোহিত শর্মার দলের বিপক্ষে আইসিসির আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে নাজমুল হোসেনের দল।

আইসিসি ও বিসিবি এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তুতি ম্যাচের সূচি ও প্রতিপক্ষ ঘোষণা না করলেও সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র প্রথম আলোকে জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা একরকম নিশ্চিত। তবে আইসিসি থেকে চূড়ান্তভাবে জানার আগে এ ব্যাপারে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগ কোনো মন্তব্য করতে রাজি নয়।

অন্যান্য বিশ্বকাপের আগে প্রতিটি দলের দুটি করে আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা বাধ্যতামূলক থাকে। কিন্তু এবারের বিশ্বকাপ যুক্তরাষ্ট্র এবং ক্যারিবীয় দ্বীপপুঞ্জ মিলিয়ে হচ্ছে বলে এবং যুক্তরাষ্ট্রে ম্যাচ আয়োজন এবং অন্যান্য খরচ অনেক ব্যয়বহুল বলে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার বিষয়টি আইসিসি থেকেই কিছুটা শিথিল রাখা হচ্ছে। কোনো দল চাইলে সর্বোচ্চ দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে পারবে, আবার কোনো দল চাইলে একটি প্রস্তুতি ম্যাচও খেলতে পারবে।

বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টির সিরিজ খেলবে। এরপর যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে হিউস্টনে যুক্তরাষ্ট্র দলের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবেই খেলবে তিন ম্যাচের সিরিজ। ম্যাচ তিনটি হবে ২১, ২৩ ও ২৫ মে। আর প্রস্তুতি ম্যাচ দুটির সম্ভাব্য তারিখ ২৮ মে ও ১ জুন।

এ অবস্থায় ভ্রমণক্লান্তি এবং বেশি ম্যাচ খেলার ধকলের কথা চিন্তা করে বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশ দুটি আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে নাকি একটি, সে ব্যাপারে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি বিসিবি। সিদ্ধান্তের অনেকটাই নির্ভর করছে প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে ও টিম ম্যানেজমেন্টের ওপর।

জানা গেছে, ভারত ছাড়াও বিসিবিকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে আরেকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে। কিন্তু বিশ্বকাপে যেহেতু নেদারল্যান্ডস বাংলাদেশেরই গ্রুপে আছে, বিসিবি তাদের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে না বলে জানিয়েছে আইসিসিকে। ভারত ছাড়া আর কোনো দলের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেললেও বাংলাদেশ তুলনামূলক বড় কোনো দলের বিপক্ষেই সেটা খেলতে চায় বলে জানা গেছে।

এ ক্ষেত্রে ম্যাচের ভেন্যুও গুরুত্বপূর্ণ বিসিবির কাছে। বিশ্বকাপে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠেয় বাংলাদেশের গ্রুপ পর্বের ম্যাচ দুটি হবে ডালাস ও নিউইয়র্কে। ৮ জুন ডালাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলার পর ১০ জুন নিউইয়র্কে প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটি নিউইয়র্কে হবে বলে বিশ্বকাপের ম্যাচের জন্য সেখানকার কন্ডিশন বুঝতে সুবিধাই হবে বাংলাদেশের। আরেকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে হলে সেটা ডালাস বা ডালাস থেকে সড়কপথে সাড়ে ৩ ঘণ্টা দূরত্বের হিউস্টনে খেলতে চাইবে বাংলাদেশ। যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রস্তুতিমূলক সিরিজটাও হবে সেখানেই।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অন্য দুটি ম্যাচ হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ত্রিনিদাদ ও সেন্ট ভিনসেন্টে। ১৩ জুন ত্রিনিদাদে প্রতিপক্ষ নেদারল্যান্ডস ও ১৭ জুন সেন্ট ভিনসেন্টে নেপাল।