০৬:১৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় জয়

জয়ের ভিত গড়ে দিয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। ১০ রানের বিনিময়ে ৬ উইকেট নিয়ে পেয়েছেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগার। আগের দুই ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে লজ্জাজনক হারের পর এমন কিছুই দরকার ছিল বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাস ফেরাতে।

প্রথম দুই টি-টোয়েন্টিতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হার। সিরিজও হয়ে যায় হাতছাড়া। হিউস্টনে তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি ছিল বাংলাদেশের জন্য মান বাঁচানোর, হোয়াইটওয়াশ লজ্জা এড়ানোর।

আরও পড়ুন <<< টসে জিতে বোলিংয়ে বাংলাদেশ >>>

এমন এক ম্যাচে এসে রেকর্ডগড়া জয় তুলে নিলো বাংলাদেশ। যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া ১০৫ রানের লক্ষ্য তারা পেরিয়ে গেলো ৫০ বল আর ১০ উইকেট হাতে রেখেই।

উইকেটের হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় জয় এটি।

কোরি অ্যান্ডারসনের ১৮ বলে ১৮ আর শ্যাডলি ভ্যান শ্যালউইকের ১৭ বলে ১২ ছিল যুক্তরাষ্ট্রের ১০০ রান পেরুনোর পুঁজি। তাদের দুজনকেই ফেরান ফিজ। তানজিম পেয়েছিলেন অধিনায়ক অ্যারন জোনসের উইকেট। ক্যাচ নিয়েছিলেন রিশাদ। শেষ ওভারে জাসদ্বীপ সিং এবং নিসর্গ প্যাটেলের উইকেট নিয়ে ৬ উইকেট পূরণ করেন মুস্তাফিজ। ১০৪ রানে অলআউটের পর দুই ওপেনার মিলে নিশ্চিত করেন মান বাঁচানোর জয়।

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয়

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় জয়

প্রকাশের সময় : ০৭:৩৯:২৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

জয়ের ভিত গড়ে দিয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। ১০ রানের বিনিময়ে ৬ উইকেট নিয়ে পেয়েছেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগার। আগের দুই ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে লজ্জাজনক হারের পর এমন কিছুই দরকার ছিল বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাস ফেরাতে।

প্রথম দুই টি-টোয়েন্টিতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হার। সিরিজও হয়ে যায় হাতছাড়া। হিউস্টনে তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি ছিল বাংলাদেশের জন্য মান বাঁচানোর, হোয়াইটওয়াশ লজ্জা এড়ানোর।

আরও পড়ুন <<< টসে জিতে বোলিংয়ে বাংলাদেশ >>>

এমন এক ম্যাচে এসে রেকর্ডগড়া জয় তুলে নিলো বাংলাদেশ। যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া ১০৫ রানের লক্ষ্য তারা পেরিয়ে গেলো ৫০ বল আর ১০ উইকেট হাতে রেখেই।

উইকেটের হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় জয় এটি।

কোরি অ্যান্ডারসনের ১৮ বলে ১৮ আর শ্যাডলি ভ্যান শ্যালউইকের ১৭ বলে ১২ ছিল যুক্তরাষ্ট্রের ১০০ রান পেরুনোর পুঁজি। তাদের দুজনকেই ফেরান ফিজ। তানজিম পেয়েছিলেন অধিনায়ক অ্যারন জোনসের উইকেট। ক্যাচ নিয়েছিলেন রিশাদ। শেষ ওভারে জাসদ্বীপ সিং এবং নিসর্গ প্যাটেলের উইকেট নিয়ে ৬ উইকেট পূরণ করেন মুস্তাফিজ। ১০৪ রানে অলআউটের পর দুই ওপেনার মিলে নিশ্চিত করেন মান বাঁচানোর জয়।